সিলেটে এলাকার বাসায় বাসায় ঝুলছে ‘টু-লেট’

প্রকাশিত: ৯:১৩ অপরাহ্ণ, জুন ২০, ২০২০

সিলেটে এলাকার বাসায় বাসায় ঝুলছে ‘টু-লেট’

হারানো বিজ্ঞপ্তি, নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি, আইনগত বিজ্ঞপ্তি, নিলাম বিজ্ঞপ্তি, এফিডেভিট, শুভেচ্ছা অভিনন্দন সহ আপনার প্রতিষ্ঠানের যেকোন বিজ্ঞাপনের জন্য আমাদের সাথে যোগাযোগ করুন, প্রচারে প্রসার প্রচারের জন্য আমরা, যোগাযোগের ঠিকানাঃ- সৈয়দ সাইফুল ইসলাম নাহেদ মোবাইলঃ ০১৭১২-০৪৫৩৯১

সৈয়দ সাইফুল ইসলাম নাহেদ:- করোনায় কমেছে মধ্য ও নিম্নবিত্তের আয়-রোজগার দেশব্যাপী বৈশ্বিক মহামারী করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ দিন দিন বেড়েই চলছে।সিলেটেও এর ব্যতিক্রম কিছু নয়। প্রতিদিনই আক্রান্তের সংখ্যা হু হু করে বৃদ্ধি পাচ্ছে বাড়ছে সচেতনতা। তাই অনেকেই কর্মহীন হয়ে উঠেছেন জীবিকার চাহিদায় প্রতিদিনিই মানুষ সিলেটে আসে। কিন্তু গত তিন মাস ধরে করোনার কারণে সাধারণ ছুটি ঘোষণা থাকায় মানুষের আয় রোজগার কমে গেছে। এতে করে তারা প্রাত্যহিক খরচ কুলিয়ে উঠতে না পারায় গ্রামের বাড়িতে চলে যাচ্ছে।

করোনার সংক্রমণ প্রতিরোধে, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কঠোর নির্দেশনার কারণে অচল হয়ে পড়েছিল অর্থনীতির চাকা যা এখনো পুরোপুরি সচল হয়নি। দিনমজুর থেকে শুরু করে বড় বেতনের চাকুরে সবার জীবনেই কোনো না কোনোভাবে এর প্রভাব পড়েছে। অনেকেই চাকরি হারিয়েছে। আবার ছেলেমেয়ের স্কুল কলেজ বন্ধ।

সে কারণে যারা চাকরি হারিয়েছে তারা একদিকে সংসারে বোঝো টানতে পারছে না আয় কমে যাওয়ায় বাসা ভাড়া একটা বড় বোঝা হয়ে দাঁড়িয়েছে। এজন্য অনেকেই নিজে মেসে উঠে পরিবারকে গ্রামের বাড়িতে পাঠিয়ে দিচ্ছেন এরকম চলতে থাকলে সিলেটে ফাঁকা হয়ে যাবে। সচেতন মহল মনে করেন, করোনা পরিস্থিতিতে বাসা বাড়ির ভাড়া এবং বিদ্যুৎ, পানি ও গ্যাসের দাম কমানো উচিত। তাহলে মানুষ কষ্ট করে হলেও টিকে থাকতে পারতো একই সময়ে নিত্যপণ্যের দাম বেড়েছে ২শ’ শতাংশ। অর্থাৎ নিত্যপণ্যের দামের তুলনায় বাড়ি ভাড়া বৃদ্ধির হার প্রায় দ্বিগুণ। এ কারণে মানুষকে উচ্চ ভাড়ায়, বলতে গেলে বেতনের বা আয়ের সিংহভাগ টাকা দিয়ে ভাড়া বাসায় থাকতে হয়। বাসা ভাড়ার খরচ মানুষকে অর্থনৈতিকভাবে দুর্বল করে রেখেছে। আয় কমে যাওয়ায় মানুষ বাধ্য হয়ে বাসা ছেড়ে দিচ্ছে এসব কারণে সিলেটে এখন প্রায় সব এলাকার বাসায় বাসায় ঝুলছে ‘টু-লেট’।

করোনার সংক্রমণ শুরুর দিকে ভাড়াটিয়াদের পক্ষে বাসা ভাড়া মওকুফের দাবি উঠেছিল অনেকেই সে সময় বাসা ভাড়া মওকুফ করে দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করেছেন। কিন্তু বাড়ির মালিকদের মহানুভবতার মূল্যায়ণ করেনি সিলেটে সিটি করপোরেশন।

বাড়িওয়ালাদের পক্ষ থেকে হাউজিং ট্যাক্স কমানোর দাবি তোলা হলেও তাতে সাড়া মেলেনি বলে সিলেটে বিভিন্ন এলাকার বাড়িওয়ালারা জানিয়েছেন।

সিলেটের চাকরির খবর / তানজিনা বেগম

সংবাদটি ভালো লাগলে শেয়ার করুন